দেশের অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুদের অভিনয়কে পুঁজি করে কি ধরণের বিনোদন প্রদর্শন করছে ইউটিউব চ্যানেল মিউজিক বাংলা টিভি

ভাষার জন্য যারা দিয়ে গেছে প্রাণ, তাদের প্রতি লাখো সালাম। সেই ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে একটি স্বাধীন দেশে শিক্ষা ও সংস্কৃতির বিকাশ ঘটবে, এটাইতো স্বাভাবিক। বিশে^র সাথে তাল মিলিয়ে বিস্তারিত

মির্জা আব্বাস ও আফরোজা আব্বাস করোনা পজিটিভ

অনলাইন ডেস্ক:  বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার (৪ নভেম্বর) দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির বিস্তারিত

নারীর সঙ্গে বিছানায় রামদেব, ভাইরাল ছবির পেছনের গল্প জেনে নিন

অনলাইন ডেস্ক: ভাইরাল হয়ে যাওয়া এক ছবিতে দেখা যায়, এক নারীর সঙ্গে বিছানায় বসে আছেন ভারতের যোগগুরু বাবা রামদেব। ছবিতে ওই নারীর কাঁধে হাত রেখে হাসিমুখে আছেন তিনি। ওই ছবি বিস্তারিত

ঢাকা-বরিশাল পথে চলাচলকারী এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চে মেয়ের জন্ম দিয়েছেন এক প্রসূতি। গতকাল শনিবার গভীর রাতে ঢাকা থেকে বরিশালে যাওয়ার পথে এ ঘটনা ঘটে। মা ও নবজাতক মেয়ে সুস্থ আছে। লঞ্চটির কর্মচারীরা বলেন, ‘গতকাল রাত সাড়ে ১১টার দিকে চাঁদপুরের ষাটনল এলাকার মেঘনা নদী অতিক্রমের সময় ওই প্রসূতি সন্তানের জন্ম দেন। নবজাতক নিরাপদে পৃথিবীর আলো দেখায় লঞ্চজুড়ে একটা উৎসবের আমেজ দেখা দেয়। লঞ্চের সুপারভাইজার নুর খান মাসুদ বলেন, ‘খবরটি জানতে পেরে লঞ্চটির মালিকের স্ত্রী নবজাতকের নাম রেখেছেন নুসাইবা। এ ছাড়া লঞ্চ মালিক নিজাম উদ্দিন মৃধা ওই দম্পতি ও নবজাতক আজীবন এই কোম্পানির লঞ্চে বিনা ভাড়ায় যাতায়াত করতে পারবেন বলে ঘোষণা দেন। লঞ্চের কর্মচারীরা বলেন, বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুধল এলাকার বাসিন্দা ফোরকান হাওলাদার ঢাকায় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। তার সন্তানসম্ভবা স্ত্রী ফাহিমা বেগমকে নিয়ে শনিবার রাতে ঢাকা থেকে লঞ্চের কেবিনে করে বরিশালের উদ্দেশে যাত্রা করেন। রাত সাড়ে ১১টার দিকে স্ত্রীর প্রসবব্যথা ওঠে। ফোরকান তখন লঞ্চের অন্য যাত্রীদের বিষয়টি জানান। লঞ্চের যাত্রী দুই নারীর সহায়তায় ফাহিমা নিরাপদে সন্তান জন্ম দেন। লঞ্চে থাকা একজন চিকিৎসক যাত্রীও এ সময় এগিয়ে গিয়ে প্রয়োজনীয় সহায়তা করেন। সকালে ওই দম্পতি বরিশাল নৌবন্দরে নেমে বাড়ি চলে যান।

চলমান লঞ্চে সন্তানের জন্ম বিনা ভাড়ায় আজীবন যাতায়াত

ঢাকা-বরিশাল পথে চলাচলকারী এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চে মেয়ের জন্ম দিয়েছেন এক প্রসূতি। গতকাল শনিবার গভীর রাতে ঢাকা থেকে বরিশালে যাওয়ার পথে এ ঘটনা ঘটে। মা ও নবজাতক মেয়ে সুস্থ আছে। লঞ্চটির বিস্তারিত

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি: যশোরের মণিরামপুরে সুরাইয়া পারভীন সাথী নামে এক কলেজছাত্রীকে অপহরনের অভিযোগে সোমবার সন্ধ্যার পর থানায় নিউ ব্রিকসের মালিক মহিদুল ইসলাম, মশ্বিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলামের ছেলে সিয়াম হোসেনসহ চারজনের নাম উল্লেখসহ একটি মামলা করা হয়। সুরাইয়া পারভীন সাথীর পিতা সার ব্যবসায়ী রেজাউল করিম এই মামলাটি করেছেন।এর মধ্যে অপহরনকারী মহিদুল ইসলাম সম্পর্কে অপহৃত সাথীর চাচা হন। রাতে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ সাথীকে উদ্ধারসহ কাউকে আটক করতে পারেনি।মামলার বাদী উপজেলার মশ্বিমনগর ইউনিয়নের হাজরাকাঠি বেলতলা গ্রামের সার ব্যবসায়ী রেজাউল করিম জানিয়েছেন, তার মেয়ে এইচএসসি পরীক্ষার্থী সুরাইয়া পারভীন সাথী শনিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে দর্জির কাছ থেকে জামা-কাপড় নিয়ে বাড়ি আসছিল।পথিমধ্যে হাজরাকাঠি এলাকার নিউ ব্রিকসের মালিক মহিদুল ইসলাম তার অপর তিন সহযোগী সিয়াম হোসেন, আবদুল কাদের এবং আশরাফুল ইসলামকে সাথে নিয়ে সাথীকে জোরপূর্বক মাইক্রোবাসে উঠিয়ে অপহরন করেন। এরপর বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজি করেও কোন সন্ধ্যান না পাওয়ায় সোমবার রাতে সাথীর পিতা বাদি হয়ে হাজরাকাঠি গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে নিউ ব্রিকসের মালিক মহিদুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলামের ছেলে সিয়াম হোসেন, জুম্মত আলী সানার ছেলে আবদুল কাদের এবং মোস্তফা হোসেনের ছেলে আশরাফুল ইসলামের নামে অপহরন মামলা করেছেন। 

তবে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, মহিদুলের সাথে সাথীর দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে। সাথীর অভিভাবকরা মহিদুলের সাথে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় ওরা শনিবার বিকেলে পালিয়েছে। অন্যদিকে সাথীর পিতা রেজাউল করিম জানিয়েছেন, তার মেয়ের সাথে মহিদুলের ইতিপূর্বে সম্পর্ক ছিল। কিন্তু বর্তমান সাথী তাকে বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় মহিদুল অপহরন করে নিয়ে গেছে।

 অপহরনকারি মহিদুল ইসলাম রেজাউল করিমের ফুফাতো ভাই।আর সম্পর্কে মহিদুল ইসলাম সাথীর চাচা হয়। মনিরামপুর থানার ওসি(তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান চারজনের বিরুদ্ধে অপহরন মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে জানায়, সাথীকে উদ্ধারসহ আসমিদের আটক করার চেষ্টা চলছে।

মণিরামপুরে আ’লীগ নেতার ছেলের বিরুদ্ধে কলেজ ছাত্রী অপহরনের মামলা

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি: যশোরের মণিরামপুরে সুরাইয়া পারভীন সাথী নামে এক কলেজছাত্রীকে অপহরনের অভিযোগে সোমবার সন্ধ্যার পর থানায় নিউ ব্রিকসের মালিক মহিদুল ইসলাম, মশ্বিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলামের ছেলে বিস্তারিত

সুমন ইসলাম বাবু – লালমনিরহাট: লালমনিরহাটের ২০ বছর ধরে তেলের ঘানি টানেন ছয়ফুলেরে দম্পতি নিজে গরু কিনার সামথ না থাকায় অভাবকে েেমাকাবেলা করেই যাচ্ছেন ছয়ফুলেরে দম্পতি নিজে ঘানি টেনে পেট ভরে খাবারের জন্য গরু না থাকায় ২০ বছর ধরে তেলের ঘানি টানেন লালমনিরহাটের কাকিনা তেলীপাড়ার ছয়ফুল ইসলাম(৪৫) ও মোর্শেদা বেগম(৩৮) দম্পতি।তেলী পরিবারটিতে গিয়ে দেখা যায় বাড়ীর উঠানে পলিথিনের চালা ঘরে স্থাপন করা হয়েছে গাছের গুঁড়ি দিয়ে তৈরি তেলের ঘানিটি। কার্যক্রম বিষয়ে কথা হলে ছয়ফুল দম্পতি জানান এক সময়ে একটি গরু থাকলেও সেটি মারা যাওয়ায় সংসারেরঘানি টানতে নিজেরাই টেনে চলছেন এ তেলের ঘানি।স্থানীয়ভাবে সেটিকে বলা হয় তেলগাছ। সেখানে স্ত্রী সন্তানের সহযোগিতায় জোঁয়াল কাধে ঘানিটানছেন ছয়ফুল। উদ্দেশ্য সরিষা হতে তেল তৈরি ও বিক্রি করে জীবিকা আর সন্তানদের পড়াশোনার খরচ যোগানো।এই প্রতিবেদককে জানান তিনি
সহায় সম্বল বলতে পৈত্রিকভাবে পাওয়া ৩ শতক জমি যেখানে টিনের ঘরে ২ ছেলে ও ১ মেয়ে নিয়ে বসবাস তাঁদের। প্রতিদিন ৪ থেকে ৬ ঘণ্টা ঘানি টেনে যে তেল পান তা খৈলসহ বিক্রি করে আয় হয় ২শ থেকে ২শ ৫০ টাকা যা দিয়ে কোনোরকম সংসার চালিয়ে দিনাতিপাত করেন পরিবারটি। তাই অর্থ সঞ্চয় না হওয়ায় সম্ভব হয়না একটি গরু কেনাও যা দিয়ে ঘানি টেনে নিস্কৃতি পেতে পান অসহায় তেলী পরিবারটি।

লালমনিরহাটের ২০ বছর ধরে জোঁয়াল কাধে তেলের ঘানি টানেন ছয়ফুলেরে দম্পতি নিজে সন্তানের উচ্চ শিক্ষা করার জন্য

সুমন ইসলাম বাবু – লালমনিরহাট: লালমনিরহাটের ২০ বছর ধরে তেলের ঘানি টানেন ছয়ফুলেরে দম্পতি নিজে গরু কিনার সামথ না থাকায় অভাবকে েেমাকাবেলা করেই যাচ্ছেন ছয়ফুলেরে দম্পতি নিজে ঘানি টেনে পেট বিস্তারিত

বিনোদন রিপোর্ট: আসছে গীতিকার শফিউল বারী রাসেলের লিখা গানে নির্মিত মিউজিক্যাল ফিল্ম “চরম অভিশাপ”। চমৎকার এই গানটির সুরারোপ করেছেন সময়ের ব্যস্ততম সুরকার গানচাষি খ্যাত প্লাবন কোরেশী। গানটি গেয়েছেন উদীয়মান কণ্ঠশিল্পী নাজক। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন প্রতিশ্রুতিশীল সঙ্গীত পরিচালক শামীম আশিক। এসএম আইয়ুব আলী খাঁন কায়সারের পরিচালনায় মিউজিক্যাল ফিল্মটিতে অনবদ্য অভিনয় করেছেন আকাশ সেন, সাগর ও সাবরিন শানু।

সম্প্রতি ঢাকা ও ঢাকার আশপাশের মনোরম লোকেশনে গানটির শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। আসছে ঈদে গানটি এএন এন্টারটেইনমেন্ট এর ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হবে।

”তোমরা যাকে প্রেম বলো,আমি বলি পাপ” ভিন্ন ঘরনার এ গানটিতে প্রেম, বিরহ ও পরকীয়ার বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে।

গানটি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে গীতিকার শফিউল বারী রাসেল বলেন, প্রথমত গানটি গতানুগতিক ধারার বাহিরের একটি লিখা, দ্বিতীয়ত এসময়ের গুনী সুরকার গানচাষি খ্যাত প্লাবন কোরেশীর সুরারোপে গানটি হয়েছে বেশ প্রানবন্ত।গানটির সঙ্গীত ও গায়কী খুবই প্রশংসনীয়। তাছাড়া মিউজিক্যাল ফিল্মের কারনে গানটি আমার বিশ্বাস দর্শক নন্দিত হবে।

সুরকার গানচাষি প্লাবন কোরেশী বলেন, রবীঠাকুরের দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়ার মত এক বলয়ে বসবাস করেও দীর্ঘদিন জানতে পারিনি গীতিকবি শফিউল বারী রাসেলের মাথায় গানের ভুতেরা বাসা বেঁধেছে বহু আগেই। আবার যখন জানলাম, তারপরেও কাজ করা হয়নি নানা কারনে। এবার সেই জট এই “চরম অভিশাপ” শিরোনামের গানের মাধ্যমে খুলে গেলো। অসাধারণ কথামালার এ গানটির জন্য আমার পক্ষ থেকে শুভকামনা ও সংশ্লিষ্ট সবার জন্য ভালোবাসা রইলো।

কণ্ঠশিল্পী নাজক বলেন, গানটির কথা, সুর ও সঙ্গীত তিনজন গুনী মানুষের সমন্বয়ে করা। সব মিলিয়ে চমৎকার একটি গান হয়েছে।গানটির মিউজিক্যাল ফিল্ম আকারে ঈদ উপলক্ষে এএন এন্টারটেইনমেন্ট ইউটিউব চ্যানেলে আসছে। আমি আশাবাদি  গানটি সবার ভালো লাগবে।সবার দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে এগিয়ে যেতে চাই।

গানটির সঙ্গীত পরিচালক শামীম আশিক বলেন, গানটি সব মিলিয়ে দারুণ হয়েছে। বিশেষ করে গানের কথা ও সুর অসাধারণ হয়েছে। আশা করছি মিউজিক্যাল ফিল্মটি দর্শক শ্রোতার বেশ প্রশংসা কুড়াবে।

ঈদে আসছে ভিন্ন ঘরনার মিউজিক্যাল ফিল্ম “চরম অভিশাপ”

বিনোদন রিপোর্ট: আসছে গীতিকার শফিউল বারী রাসেলের লিখা গানে নির্মিত মিউজিক্যাল ফিল্ম “চরম অভিশাপ”। চমৎকার এই গানটির সুরারোপ করেছেন সময়ের ব্যস্ততম সুরকার গানচাষি খ্যাত প্লাবন কোরেশী। গানটি গেয়েছেন উদীয়মান কণ্ঠশিল্পী বিস্তারিত

অনলাইন ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন কিংবা ওষুধ আবিষ্কার নিয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। দিনরাত গবেষণা করেও কার্যকরী কোনও টিকা এখনও আবিষ্কার করতে পারেননি কোনও দেশের বিজ্ঞানীরা। তবে এবার বোধহয় প্রথম সুখবরটা এলো যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের তরফ থেকে।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, নভেল করোনা ভাইরাসের একটি ভ্যাকসিন তারা বানরের শরীরে প্রয়োগ করে আশাব্যঞ্জক ফল পেয়েছে। মানবদেশে পরীক্ষামূলকভাবে প্রয়োগ করা এই ভ্যাকসিন বানরের শরীরে কেমন প্রতিক্রিয়া তৈরি করে সেটিই তারা পরীক্ষা করে দেখতে চেয়েছিলেন। ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের পর বানরের শরীরে ব্যাপকভাবে করোনা ভাইরাস প্রবেশ করানো হলেও সেটি তার শরীরে সংক্রমণ ঘটাতে পারেনি বলে দাবি বিজ্ঞানীদের।

গবেষকরা জানিয়েছেন, তারা করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটি স্বল সংখ্যক বানরে পরীক্ষা করে আশাব্যঞ্জক লক্ষণ দেখতে পেয়েছেন। ৬টি রিবাস মাকাককে বানরের শরীরে বর্তমানে মানুষের মধ্যে পরীক্ষা করা ভ্যাকসিনের অর্ধ ডোড দেয়া হয়েছিল।

ইঁদুরের শরীরেও ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করে প্রত্যাশিত ফল পাওয়া গেছে। দেখা গেছে, কয়েকটি প্রাণী টিকা দেয়ার ১৪ দিনের মধ্যে ভাইরাসটির বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি করেছিল। ২৮ দিনের মধ্যে সবকটির মধ্যেই অ্যান্টিবডি তৈরির প্রমাণ পাওয়া যায়।

এক গবেষণা প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, একক টিকাদানের ডোজও প্রাণীগুলোর ফুসফুসের ক্ষতি প্রতিরোধে কার্যকর ছিল। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের যে অঙ্গগুলো মারাত্মকভাবে আক্রান্ত হতে পারে টিকাদানের পরে সেগুলোতে ক্ষতি হতে দেখা যায়নি।

এ নিয়ে গবেষকদের দাবি, তারা অন্য প্রাণীদের তুলনায় সার্স-কোভি -২ এর সাথে চ্যালেঞ্জ করা ভ্যাকসিন দেয়া প্রাণীদের মাঝে ব্রঙ্কোয়েলভোলার ল্যাভেজ ফ্লুইড এবং শ্বাস নালীর টিস্যুগুলোতে ভাইরাসটির উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পাওয়া লক্ষ্য করেছেন। টিকা নেয়া রিসাস ম্যাকাকসে কোনো নিউমোনিয়ার লক্ষণও দেখা যায়নি। গুরুত্বপূর্ণভাবে, টিকা দেওয়া প্রাণীগুলোতে ভাইরাল চ্যালেঞ্জের পরে প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোয় রোগের কোনও প্রমাণও মেলেনি।

এ বিষয়ে লন্ডন স্কুল অব হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিনের ফার্মাকোসপিডেমিওলজি বিভাগের অধ্যাপক স্টিফেন ইভান্স বলেছেন, ‘ফলাফলগুলো খুবই স্পষ্টভাবে একটি সুসংবাদ দিচ্ছে। আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সন্ধানটি হলো ভাইরাল লোড এবং পরবর্তী নিউমোনিয়ার ক্ষেত্রে যথেষ্ট কার্যকারিতার সংমিশ্রণ। তবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর কোনও প্রমাণ নেই।’

তিনি বলেন, ‘আপাতত উৎসাহিত হওয়াই যায়। তবে অক্সফোর্ডের তৈরি এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ বানরের মতো মানুষের শরীরেও একইভাবে প্রতিফলিত হবে কিনা তা বলা যাচ্ছে না। কিন্তু তাদের ভ্যাকসিন আশা জাগাচ্ছে।

করোনার ‘ভ্যাকসিন’ পরীক্ষামূলকভাবে বানর ও ইঁদুরে প্রয়োগে সফল

অনলাইন ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন কিংবা ওষুধ আবিষ্কার নিয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। দিনরাত গবেষণা করেও কার্যকরী কোনও টিকা এখনও আবিষ্কার করতে পারেননি কোনও দেশের বিজ্ঞানীরা। তবে বিস্তারিত

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি:- যশোরের মণিরামপুরে দেনার দায়ে ও রোগের জ্বালা সইতে না পেরে এক পুরুষ ও এক নারী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার রাতে উপজেলার খানপুর ইউপির ঘুঘুদা ও মুন্সিখানপুর গ্রামে পৃথক ঘটনা ২টি ঘটে।খবর পেয়ে রবিবার সকালে লাশ দুইটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। পৃথক ঘটনায় থানায় দুইটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
নিহত তারক দাস (৫৫ )ঘুঘুদা গ্রামের মৃত জগবন্ধু দাসের ছেলে এবং আয়েশা বেগম (৩৫) মুন্সি খানপুর গ্রামের গোলাম রব্বানী তোতার স্ত্রী।
মণিরামপুর থানার (এসআই) সৈয়দ আজাদ আলী বলেছেন, তারক দাস চুড়ি-ফিতা বিক্রি করতো। সংসারের বোঝা টানতে তিনি বেশ কিছু টাকা ঋণ হয়ে পড়ে সে। প্রায়ই পরিবারের লোকজনকে সে আত্মহত্যার কথা বলত। শনিবার রাতে ওষুধ কেনার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় তারক। রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। পরে বরিবার  সকালে বাড়ির পাশে মেহগনী গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় স্বজনরা তার লাশ উদ্ধার করেছিলেন। তারক গলায় রশি জড়িয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

এদিকে মুন্সিখানপুর গ্রামের আয়েশা বেগম দীর্ঘদিন রোগাক্রান্ত ছিলেন। গত ১০/১২ বছর ধরে স্বামী তার কোন খোঁজ নেননি। মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে শনিবার রাতের কোন একসময় তিনি গলায় রশি পেঁচিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। রোববার সকালে স্বজনরা তার লাশ উদ্ধার করেন, বলেন এসআই আজাদ।

(এসআই) আজাদ বলেছেন, লাশ দুইটি উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। পৃথক ঘটনায় থানায় দুইটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

যশোর মণিরামপুরে এক দিনে ২ ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি:- যশোরের মণিরামপুরে দেনার দায়ে ও রোগের জ্বালা সইতে না পেরে এক পুরুষ ও এক নারী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার রাতে উপজেলার খানপুর ইউপির ঘুঘুদা ও বিস্তারিত

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি :- যশোরের শার্শায় সদ্য নবজাতক এক শিশুকে জীবিত উদ্ধার করেছেন বজলুর রহমান নামে এক কৃষক। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার কাঠুরিয়া গ্রামের ১টি পটলের ক্ষেতের আইলের উপর থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন তিনি।
কৃষক বজলুর রহমান জানিয়েছেন, ভোরে পটলের ক্ষেতে পটলের ফুল ছোঁয়ানো কাজ করতে গিয়ে আইলের উপর ১টি বস্তা পড়ে থাকতে দেখি। একটু কাছে গিয়ে দেখি ভীতরে কিছু নড়াচড়া করছে। তখন বস্তার মুখ খুলতেই দেখি সদ্য নবজাতক ১টি শিশু কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় ছটফট করছে। শিশুটিকে বাড়িতে এনে প্রাথমিক পরিচর্যা করছি। এই ঘটনা মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক এলাকাবাসী শিশুটিকে একনজর দেখার জন্য ছুটে আসেন। জানতে চাইলে উলাশী ইউনিয়নের মহিলা ইউপি সদস্য মমতাজ বেগম জানিয়েছেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি এবং বজলুর রহমানের বাড়িতে গিয়ে শিশুটি বিষয় খোঁজ খবর নিয়েছি। কৃষক বজলুর রহমান দম্পতিও নিঃসন্তান হওয়ায় তিনি শিশুটিকে নিজের সন্তানের মতোই লালন পালন করতে ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবহিত করে বজলুর রহমানের হাতে শিশুটিকে তুলে দেওয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেছেন, রাখে আল্লাহ মারে কে, কে বা কারা শিশুটিকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে ফেলে দিয়ে যায়। আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে জীবিত অবস্থায় নিঃসন্তান কৃষকের ঘরে ঠাঁই হলো তার।।

যশোর শার্শায় পটল ক্ষেতের আ’লে বস্তার ভিতর নবজাতক

নিলয় ধর,যশোর প্রতিনিধি :- যশোরের শার্শায় সদ্য নবজাতক এক শিশুকে জীবিত উদ্ধার করেছেন বজলুর রহমান নামে এক কৃষক। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার কাঠুরিয়া গ্রামের ১টি পটলের ক্ষেতের আইলের উপর থেকে শিশুটিকে বিস্তারিত

অনলাইন ডেস্ক: মাদারীপুরের শিবচরে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটনের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ১৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২২ শত পরিবারের মাঝে খাবার সহায়তা বিতরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে চৌধুরী ফাতেমা বেগম পৌর অডিটোরিয়াম থেকে দলীয় নেতাকর্মী দিয়ে ইউনিয়নে ইউনিয়নে পৌঁছে দেওয়া হয় চাল, ডাল, তেলসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য।

এ সময় পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. লতিফ মোল্লাসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শিবচর পৌরসভার মেয়র মো. আওলাদ হোসেন খান বলেন, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন এমপির পক্ষ চাল, ডাল, তেলসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য ইউনিয়নে ইউনিয়নে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, ‘করোনা সংক্রমন রোধে শিবচর বাংলাদেশে দৃষ্টান্ত। বিশেষ করে চিফ হুইপ স্যারের পক্ষ থেকে ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়ার কারণে তা সম্ভব হয়েছে।’

চিফ হুইপের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খাবার বিতরণ


ঢাকা, ১৪ জুলাই, ২০১৯ (চ্যানেল ২৬) : ঝুঁকি কমাতে সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর ‘ইন অরবিট’ (কক্ষ পথ) বীমা করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এ বীমা অংক বাংলাদেশি টাকায় ১৩৪ কোটি ২৮৮ লাখ টাকা। বীমার প্রিমিয়াম ধরা হয়েছে বাংলাদেশি টাকায় ৫ কোটি ৬৮ লাখ ২৭ হাজার টাকা। ভ্যাট হিসেবে সরকারি কোষাগারে জমা হচ্ছে বাংলাদেশি টাকায় ৮৫ লক্ষ ২৪ হাজার টাকা।

ইতিমধ্যে সাধারণ বীমা সরকারের গৃহীত মেগা প্রকল্প সমূহ যেমন- মাতারবাড়ী কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, সিঙ্গেল লাইন ডুয়েল গেজ রেলপথ দোহাজারী থেকে কক্সবাজার, পদ্মা ব্রিজ রেল লিংক, রূপপুর নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট, বঙ্গবন্ধু টানেল ও মেট্টো রেল প্রকল্পগুলোর বীমা ঝুঁকি গ্রহণ করে অর্থনৈতিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে।

এ বছরের ১১ জুলাই থেকে ২০২০ সালের ১০ জুলাই পর্যন্ত এক বছরের জন্য ফ্রান্সের কোম্পানি থ্যালাস অ্যালেনিয়াকে বাদ দিয়ে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সঙ্গে করা হচ্ছে এ বীমা পলিসিটি। এর ফলে দেশের সম্পদ দেশেই থাকছে বলে মনে করেন বীমা সংশ্লিষ্টরা।

সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের জনসংযোগ বিভাগ জানায়, অনেক চেষ্টার পর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বীমা ঝুঁকি গ্রহণ করেছে সাধারণ বীমা কর্পোরেশন। দেশের সম্পদ দেশে রাখতেই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এতে দেশের বীমার প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা বাড়বে এবং সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সঙ্গে দেশি বীমা কোম্পানির পাশাপাশি বিদেশি বীমা কোম্পানি গুলো বীমা করতে উৎসাহিত হবে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বীমা ঝুঁকি গ্রহণ করল সাধারণ বীমা কর্পোরেশন

নিউজ ডেক্স: আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নর্বাচনে ৩২নং ওয়ার্ডে সবচেয়ে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন ত্যাগী-নিবেদিতপ্রাণ ও গণমানুষের নেতা জাতীয় পাটির ঢাকা মহানগর-উত্তরের প্রচার সম্পাদক ও মোহাম্মদপুর থানা জাতীয় পাটির সাধারণ সম্পাদক এস.এম হাসেম।

সরোজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বললে, তারা জানান এস.এম হাসেমকে ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই। জনশ্রুতি রয়েছে, তরুন এ জননেতার কাছে যেকোন পেশা শেণীর মানুষই তাদের সমস্যা নিয়ে তার খুব কাছাকাছ যেতে পারেন এবং তিনি ভূক্তভোগীদের কথা মন দিয়ে শুনে তাতক্ষনিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন। এ কারণে এলাকার জনগণ তাকে মানবতার মুকুল নামে উপাধি দিয়েছে।

এলাকাবাসীর আরো জানান, এলাকা আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখা, চাঁদাবাজী সন্ত্রাস-মাস্তানি বন্ধ এবং দূর্নীতির জঙ্গীবাদ-এর বিরুদ্ধে তাঁর শক্ত অবস্থান, তাই এই ৩২নং ওয়ার্ডে এস.এম হাসেম জনপ্রিয়তার শীর্ষে বা বিকল্প কোন নেতা এখনও এই ৩২নং ওয়ার্ডে সৃষ্টি হয়নি।

তরঙ্গ নিউজের সাথে এক সাক্ষাত্কারে কাউন্সিলর প্রার্থী এস.এম হাসেম বলেন, আমি এলাকাবাসীর সেবা করার জন্য নির্বাচন করবো্ জনগন আমাকে নির্বাচিত করলে এলাকার সকলের সহযোগীতা নিয়ে জনগনের জন্য কাজ করে যাবো।আমার বিশ্বাস জনগণ আমাকে যোগ্য মনে করে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন।

এস.এম হাসেম ৩২নং ওয়ার্ডবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের একান্ত আপনজন হয়ে প্রতিদিন পাশে থাকতে চাই আপনাদের হাসি-আনন্দ ও সুখ-দুঃখে। এলাকার উন্নয়ন, নাগরিক দাবী আদায়ের সহযাত্রী ও সব ধরনের সামাজিক কর্মকান্ডে সব সময় আপনাদের পাশে থাকবো। যদি মনে করেন আপনাদের চাওয়া পাওয়ার কথা উচ্চারিত হোক কোন বলিষ্ঠ কন্ঠে তবে আমার বলতে দিন।আপনাদের জন্য আমাকে কিছু করার সুযোগ দিন।আমি আপনাদের ভিড় থেকেই উঠে আসা আপনাদেরই একজন। আপনারা ভালো থাকলে ৩২নং ওয়ার্ডবাসী ভালো থাকবে,আমাদের রাজধানী ঢাকা ভালো থাকবে এবং ভালো থাকবে আমাদের সোনার বাংলাদেশ। তাই সকল দিক বিবেচনা করে আমাকে আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন উত্তর এর ৩২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে আমাকে একটি ভোট দিন।

ডিএনসিসিনির্বাচনে ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে জনপ্রিয়তার শীর্ষে এস.এম হাসেম

নিরেন দাস(জয়পুরহাট)প্রতিনিধিঃ- জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার বুড়াইল সরদার পাড়া গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জেড়ধরে পরিকল্পিত যোগসাজশে হত্যার উদ্দেশ্যে দলবদ্ধভাবে হামলা চালিয়ে (এসএসসি পরীক্ষার্থী) জাফিকুর রহমান অমি (১৫) ও তার মা মোছাঃ আছমা খাতুন (৪০) কে পিটিয়ে গুরুতর জখম ও শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার পর থেকে হামলাকারীরা অর্থবান ও ক্ষমতাধর হওয়াই আহতরা যেন থানায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করতে যায় এ জন্য প্রাণনাশের হুমকি ও বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখালে বিষয়টি আহত পরীক্ষার্থী অমি”র চাচা মোঃ আব্দুল হাই মিলন জানতে পেরে তিনি নিজেই বাদী হয়ে হামলাকারী ৬ জনের বিরুদ্ধে (৫-ফেব্রুয়ারি) ক্ষেতলাল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। হামলাকারী আসামীরা হলেন,উপজেলার বুড়াইল সরদার পাড়া গ্রামের মৃতঃ- মোত্তালেব সরদারের ছেলে (১) মেহেদি হাসান,(২) মোস্তাক হোসেন নাহাজ,(৩) মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন জগলুল,(৪) আসামী মেহেদির স্ত্রী মোছাঃ আনোয়ারা আক্তার নূপুর,(৫) আসামী মোস্তাকের স্ত্রী মোছাঃ নাজমুন নাহার ও একই গ্রামের মোঃ মাফতুম হোসেনের স্ত্রী (৬) পাখি বেগম। উক্ত মামলার বিবরণ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, (গত ৩ এ-ফেব্রুয়ারি) সোমবার শুরু হয় এসএসসি-সমমান-২০ পরীক্ষা প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষে ওই দিন সন্ধায় অমি তার নিজ ঘরে পড়ছিল হঠাৎই সে শুনতে পারে বাহিরে বেজোড়ে চিৎকার চেঁচামেচি হচ্ছে যা পূর্ব শত্রুতার জেড়ে পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাদের বাড়ির সামনের একটি মুরগির ঘর উল্লেখিত আসামীরা ভাঙচুর করছে এমনি অবস্থায় অমি”র মা তাদের বাঁধা দিতে গেলে আসামীদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র ও ইটপাটকেল দ্বারা মাথায় আঘাত করছে পাশাপাশি পড়নের কাপড়চোপড় ছিঁড়ে শ্লীলতাহানি করার দৃশ্য দেখে অমি ঘর থেকে দৌড়ে গিয়ে তার মা কে রক্ষা করার চেষ্টা করলে তাকে লক্ষ করে হত্যার উদ্দেশ্যে সজোরে মাথায় লোহার রড দ্বারা আঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তার মা ছেলেকে বাঁচাতে চিৎকার দিলে স্থানীয় পার্শ্ববর্তী মোঃ মনতাছির মামুন সনি,মোছাঃ শাহানা আক্তার ও লাইজু বেগম সহ আরও অন্যান্যরা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়,ততক্ষণিক ওই স্থানীয়রা অমি ও তার মা কে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ভ্যানযোগে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। বর্তমানে তারা এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ বিষয়ে ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান জানান,হামলাকারীদের বিরুদ্ধে পরীক্ষার্থী”র চাচা আব্দুল হাই মিলন বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দিলে মামলাটি আমলে নিয়ে,আমার থানা পুলিশ এ ঘটনা তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছে। এতে আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে। এমনকি তাদেরকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলেও তিনি জানান

ক্ষেতলালে এসএসসি পরীক্ষার্থী ও তার মাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পিটিয়ে জখম”৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা।

লোহাগাড়া প্রতিনিধি মোঃ কাউছার আলম:০৪/১০/২০১৯ চট্টগ্রামের লোহাগাড়া আমিরাবাদ হোটেল ও আই সি হলরুমে জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এক জরুরী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সম্মানিত সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক এমএ তাহের (তারেক) জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক লোহাগাড়া শাখা সাংবাদিক মুহাম্মদ ঈসা পবিত্র কোরআন তেলােওয়াতের মাধ্যমে সভা অনুষ্ঠান শুরু করে। সঞ্চালনা ছিলেন জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা, এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক , লোহাগাড়া প্রেস ক্লাবের সম্মানিত সভাপতি, বাংলাদেশ ভূমি হীন আন্দোলন লোহাগাড়া উপজেলা শাখার সম্মানিত সভাপতি , জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় আইন বিষয়ক সম্পাদক , দৈনিক ওলামা কন্ঠ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা প্রতিনিধি এডভোকেট মুহাম্মদ মিয়া ফারুক, সহ-সভাপতি হারুনুর রশিদ, আরো উপস্থিত ছিলেন তুষার আহামেদ কাইছার শিহাব উদ্দিন শিহাব চ্যানেল কর্ণফুলি, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন বান্দরবান পার্বত্য জেলার কার্যনির্বাহী সদস্য আবুল কাশেম, জেলা কৃষক লীগ নেতা নূরুল ইসলাম ভান্ডারী, ইসমাইল হোসেন সোহাগ সাধারণ সম্পাদক জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লামা উপজেলা শাখা,জিয়া হোসেন, বাবুল চৌধুরী, মোঃ কাউছার আলম, মুহাম্মদ ঈসা দপ্তর সম্পাদক জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা , আব্বাছ উদ্দিন দৈনিক মানবাধিকার ক্রাইম বার্তার সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া প্রতিনিধি ও জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখার কার্যনির্বাহী সদস্য , রফিকুর রহমান দৈনিক মানবাধিকার ক্রাইম বার্তা লোহাগাড়া প্রতিনিধি ও জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা কার্যনির্বাহী সদস্য, মুহাম্মদ ফাহিম রিপোর্টার, জাতীয় দৈনিক মুক্তালোক, জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা কার্যনির্বাহী সদস্য, আরো উপস্থিত ছিলেন সাইফুল ইসলাম, রমজান আলী, মুহাম্মদ এমরান সহ প্রমুখ। উল্লেখ্য যে, উক্ত এ বৈঠকে সংগঠনের লোহাগাড়া উপজেলা শাখার জন্যে স্থায়ী অফিসের ব্যবস্থা, শিক্ষা সফর ও সাংবাদিকদের কল্যাণে বিষয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের এর উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

themesbazartvsite-01713478536
error: Content is protected !!