লালমনিরহাটে বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী জনসভা

লালমনিরহাটে বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী জনসভা

সুমন ইসলাম বাবু লালমনিরহাট: লালমনিরহাট জেলা বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রাথী মোশাররফ হোসেন রানার পৌরসভার বিভিন্ন ওয়াডে নিবাচনী জনসভা করেন। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান বাবলা, পৌর বিএনপির আহবায়ক আফজাল হোসেন, সাধারন সম্পাদক মজমুল হোসেন প্রমানিক, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এড ফজলুল হক সরকার, সাবেক ছাত্র দলের নেতা মহিউদ্দিন আহমেদ, জেলাা শ্রমিক দলের

শেয়ার করুন

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী যুব সংস্থার আয়োজনে শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পৌর মেয়র ও কাউন্সিলারদের সংবর্ধনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার দিনব্যাপী পৌর এলাকার বৈরী হরিণ গ্রামের খোলামাঠে বিশিষ্ট ব্যবসায়ি বদিউজ্জামান বদের সভাপতিত্বে প্রতিযোগীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ ও মেয়র এবং কাউন্সিলরদের সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র জননেতা গোলাম সরোয়ার প্রধান বিপ্লব। এতে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অত্র ওয়ার্ডে কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান শেখ ফরিদ। আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার নবনির্বাচিত কাউন্সিলরবৃন্দ। আলোচনা শেষে মেয়র ও কাউন্সিলরদের সংবর্ধনা প্রদান করে ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় অংশ গ্রহনকারীদের হাতে পুরুস্কার বিতরণ করেন অতিথি ও আয়োজক কমিটির নেতৃবৃন্দ। এদিকে এদিন সন্ধ্যায় পলাশবাড়ী উপজেলার ১ নং কিশোরগাড়ী ইউনিয়নে চকবালা গ্রামে চকবালা বন্ধু মহল সমবায় সমিতির আয়োজনে ও ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টুর সভাপতিত্বে ৪ র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র গোলাম সরোয়ার প্রধান বিপ্লব অনুষ্টানে আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় গণমাণ্য ব্যক্তিবর্গসহ উক্ত সমিতির পরিচালনা পরিষদের নেতৃবৃন্দ। শেষে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিকে সংবর্ধনা ও সম্মানোনা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী যুব সংস্থার আয়োজনে শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

তৃণমুলের রাজনৈতিক নেতাদের পদ-পরিচিতি সম্পর্কে স্বচ্চ ধারনা পেতে এবং দিতে ‘চ্যানেল-26’ এর তদন্ত প্রতিবেদন

দলের নেতা কর্মীরা দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে নির্বাচন করেছে। বিদ্রোহী প্রার্থীর নির্বাচন করেছে, আমি দুই বছর মাঠে আছি, জনগণ আমাকে আশ্বাস দিছে নির্বাচন করার জন্য।নৌকার প্রতীক পেলে আমি তালশহর ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলব।”মোঃ সোলাইমান মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার ৪নং তালশহর ইউনিয়ন পরিষদের আসন্ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী।সভাপতি- তালশহর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ (উক্ত পদবী বিষয়েই তথ্য ভিত্তিক তদন্ত প্রতিবেদন বিষয়ে স্বাক্ষাৎকার এবং তথ্য প্রমাণাদি সংগ্রহের কাজ চলমান)
সমাজ, দেশ ও জাতির সার্বিক মঙ্গল এবং অগ্রগতির ধারাকে সুসংহত রাখার জন্যে চ্যানেল-26, দৈনিক স্বাধীন সংবাদ, দৈনিক আলোর জগত, দৈনিক মাতৃভূমির খবর এবং দৈনিক প্রতিদিন খবর সহ বেশ কিছু জাতীয় ও স্থানীয় প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক্স এবং অনলাইন মিডিয়ার সমন্বয়ে উক্ত তদন্ত প্রতিবেদনের অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্টদের মতামত ও বক্তব্য গ্রহন এবং প্রচারের মাধ্যমে বিরাজমান বিষয়টি সম্পর্কে আমরা একটি স্বচ্চ ধারণা পেতে এবং দিতে চাই।২০১৩ইং সালের ১৩ জানুয়ারিতে আশুগঞ্জ উপজেলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।কাউন্সিলের মাধ্যমে নির্বাচিত উক্ত কমিটির সভাপতি হাজী মোঃ ছফিউল্লাহ মিয়া এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ হানিফ মুন্সি বেশ কিছুদিন যাবৎ চেষ্টা করেও কোনো সমজতায় পৌছাতে না পারার কারণে আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয় নাই। এবং এর মধ্য দিয়েই চলে আসে উপজেলা নির্বাচন। সেই নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে হানিফ মুন্সি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সেক্রেটারীদের ভোটে মনোনিত হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হন ২০১৪ইং সালে। সেই সময়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের মধ্যকার সৃষ্ট অচলাবস্থার এক পর্যায়ে সভাপতি হাজী মোঃ ছফিউল্লাহ মিয়া পদত্যাগ করে বসে। ফলে সেই সময় উক্ত উপজেলা কমিটির দ্বারা আশুগঞ্জ উপজেলাধীন যে ৮টি ইউনিয়ন এবং আশুগঞ্জ বন্দর কমিটি রয়েছে সেইগুলোর কার্যত ঐক্যবদ্ধ কোনো কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়নি। তখন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ নিজেদের সাধ্য অনুসারে উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ দুই নেতার সিদ্ধান্তহীনতার কারণে কাজ চলিয়ে গেছে যে যার মত করে। উপজেলা আওয়ামী লীগের পদত্যাগের কিছু দিনের পর কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের স্বাক্ষর নিয়ে হাজী মোঃ ছফিউল্লা মিয়া আহ্বায়ক, আবু নাছের আহম্মেদ যুগ্ম আহ্বায়ক, হানিফ মুন্সি যুগ্ম আহ্বায়ক, খোরশেদ আলম যুগ্ম আহ্বায়ক হয়ে আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি আহ্বায়ক কিমিটি তখন থেকে আগামী ৩ মাস তথা ৯০ দিনের মধ্যে একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্যে কাজ শুরু করে। এখানে উল্লেখ্য যে ১৩ জানুয়ারি ২০১৩ইং তারিখের উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের সময় তালশহর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন হাজী মোঃ আবু সামা এবং সাধারণ সম্পাদক ছিলেন মোঃ মজনু মিয়া। এরপর উপজেলা আহ্বায়ক কমিটি তিন মাসের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করতে গিয়ে গ্রুপিং এর দুইটি প্যানেলে কাজ চালাতে থাকে। একটি প্যানেলে ছিল হাজী মোঃ ছফিউল্লাহ মিয়া ও আবু নাছের আহম্মেদ এবং অপর প্যানেলে ছিল মোঃ হানিফ মুন্সি এবং খোরশেদ আলম। এই দুই গ্রুপিং প্যানেল কাজ চালাতে গিয়ে প্রত্যেকটি প্যানেল প্রতিটি ইউনিয়নে নিজেদের গ্রুপের পছন্দের লোক দিয়ে ইউনিয়ন কমিটি গঠন করে কেউ প্রতিপক্ষের আতংকের মধ্যে আবার কেউ ১৪৪ ধারার বাঁধাকে অপেক্ষা করে। তখন তালশহর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মতই প্রতিটি ইউনিয়নেই আওয়ামী লীগের ২টি করে কমিটি গঠিত হয়। এক প্যানেলের কমিটির সমর্থকরা অপরপক্ষকে অবৈধ বলে আখ্যায়িত করতে থাকে। এক পর্যায়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এসেও এর কোনো সমাধান দিতে পারে নাই।গত জাতীয় সংসদ নির্বাচন এবং উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্রকরে আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির গ্রুপিং প্যানেলের প্যার্টান পরিবর্তন হয়েছে কিন্তু ঐক্যবদ্ধা কোনো সমজতা আসেনি। পাশাপাশি উপজেলা আহ্বায়ক কমিটির মেয়াদ ৯০দিন নির্ধারন করা থাকলেও আজ ২০২১ইং সালে এসে তা ৬ বছর অতিক্রম করতে চলেছে কিন্তু পূর্ণাঙ্গ কমিটি আসার কোনোই সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। ফলে তৃণমূলের নেতারা হয়ে যাচ্ছে গণবিচ্ছিন্ন এবং জবাবদিহিতার বাহিরে যা গণতান্ত্রিক রাজনীতির ক্ষেত্রে চরম এক অসচ্চতা। এই পরিস্থিতিতে আমরা গণমাধ্যম কর্মীরাও রাজনৈতিক নেতাদের পদ-পরিচয় প্রকাশ করতে গিয়েই এই তদন্ত প্রতিবেদনটি করতে সংশ্লিষ্টদের সাথে ধারাবাহিক স্বাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে বিষয়টি সম্পর্কে একটি যথাযথ জবাবদিহিতা এবং তথ্য ভিত্তিক তদন্ত প্রতিবেদন প্রস্তুত করছি।

তালশহর ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলব: মোঃ সোলাইমান মিয়া

সফিকুল ইসলাম শিল্পী:ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে ২৩ ডিসেম্বর বুধবার বিকালে থানা চত্বরে সদ্য অবসরে যাওয়া পুলিশ সদস্য লুৎফর রহমান (৬০)এর বিদায় সংবর্ধনার আয়োজন করে রাণীশংকৈল থানা পুলিশ।অবসরে যাওয়া পুলিশ লুৎফর রহমান একই উপজেলার নেকমরদ আরাজি চন্দন চহট গ্রামের মৃত ফুল মুহাম্মদের ছেলে । থানা সূত্রে জানা গেছে , লুৎফর রহমান ১৯৮০ সালে ঢাকার ডিএমপি’তে প্রথম পুলিশে যোগদান করেন । এ বছরে তার চাকুরী জীবনের শেষ পর্যায়ে এসে গত ১০ মার্চ ২০২০ এ রাণীশংকৈল থানায় যোগদান করেন এবং একই স্টেশনে থেকে ১ ডিসেম্বর২০২০ সালে এসে দীর্ঘ কর্মজীবন শেষ করে পিআরএল যান।এ উপলক্ষে রাণীশংকৈল থানা সাড়ম্বর বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে । এতে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার রানীশংকৈল( সার্কেল) তোফাজ্জল হোসেন, রাণীশংকৈল থানা অফিসার ইনচার্জ এস এম জাহিদ ইকবাল, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল লতিফ শেখ, থানা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর, সরকারি সাব-ইন্সপেক্টরসহ পুলিশ সদস্যরা ।অনুষ্ঠান শেষে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য লুৎফর রহমানকে থানা পুলিশের বেলুন সম্বলিত সুসজ্জিত (পিকআপ) গাড়ীতে করে তার বাসভবনে পৌঁছে দেওয়া হয়।অবসরপ্রাপ্ত লুৎফর রহমান জানান, আমাকে এইভাবে সম্মানিত করা হবে কোনদিন তা ভাবতে পারিনি। রাণীশংকৈল থানার সকল কর্মকর্তাসহ পুলিশ সদস্যদের মঙ্গল ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।রাণীশংকৈল থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম জাহিদ ইকবাল জানান, আমাদের একজন পুলিশ সদস্যকে এভাবে বিদায় দিতে পেরে আমরা নিজেকে গর্বিত মনে করছি। আশা করি এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

রানীশংকৈলে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য লুৎফুর রহমানের বিদায় সংবর্ধনা

গাইবান্ধা জেলার সাংবাদিকদের সাথে কোভিড-১৯ ও স্বাস্থ্য সেবা শীর্ষক মাস্ক ব্যবহারের সচেতনতামূলক বিএমএ এর মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার দুপুরে জেলা সিভিল সার্জনের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) এর আয়োজনে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিএমএর সাধারণ সম্পাদক ও অনুষ্ঠানের সভাপতি ডাঃ নজরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) এর সভাপতি ডাঃ মতিয়ার রহমান, গাইবান্ধা জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আখতারুজ্জামান, জেলা সদর হাসপাতালের তত্তাবাধায়ক ডাঃ মেহেদী ইকবাল, ডাঃ আসাদুজ্জামান, ডাঃ শেখ সুলতান আহমেদ সোহেল,ডাঃ শাহিনুল মন্ডল শাহিন সহ আরো অনেকে।

গাইবান্ধা জেলার: সাংবাদিকদের সাথে কোভিড ১৯ স্বাস্থ্য সেবা শীর্ষক মতবিনিময় সভা

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি বলেন, মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কখনো টাকার বিনিময়ে কোথাও ইসলাম প্রচার করেন নি। তিনি কখনও কোন উপহারের বিনিময়ে ইসলাম প্রচার করেন নি। যারা টাকার বিনিময়ে ইসলাম প্রচার করতে গিয়ে ফরয পালন করতে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার পরিবর্তে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে তারা ইসলামের বন্ধু না শত্রæ তা অনুধাবন করার জন্য দেশের সকল ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের প্রতি আন্তরিক ভাবে আহবান করছি।তিনি মঙ্গলবার গাইবান্ধা জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় এসব কথা বলেন। গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের এস কে এস ইনের কনফারেন্স রুমে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাড. সুলতান আলীর সভাপতিত্বে এই বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এ্যাড. হোসনে আরা লুতফা ডালিয়া, সাবেক এমপি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য এ্যাড. সফুরা বেগম রুমি, কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপনসহ জেলা-উপজেলা কমিটির সকল নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কখনো টাকার বিনিময়ে কোথাও ইসলাম প্রচার করেন নি

লিয়াকত রাজশাহী ব্যুরোঃ মানববন্ধনে মো. শহিদুজ্জামান শহিদের দলীয় মনোনয়ন মনোনয়ন বাতিল চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা।
রোববার (২০ ডিসেম্বর) সকালে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আ’লীগ প্রার্থী শহিদুজ্জামানের মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করে প্রায় ৪ হাজার নারী-পুরুষ, আড়ানী বাজার কমিটি ও মুক্তিযোদ্ধারা।
মানববন্ধনে বির্তকিত কর্মকাণ্ডে জড়িত শহিদুজ্জামান শাহিদকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে মনোনয়নপত্র বাতিল চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বিক্ষোভকারীরা। আড়ানী পৌরসভা সংলগ্ন বাউসা অভিমুখের রাস্তায় এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারি স্থানীয় আ’লীগ নেতা বলেন, আড়ানী পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড সভাপতি আব্দুল লতিফ ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সোহেল রানা, ৮ নং ওয়ার্ড সভাপতি সাজদার রহমান, ৫ নং ওয়ার্ড সভাপতি মোহাম্মদ আজিজল রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মুক্তার আলী বলেন, তৃণমূলের মতামত না নিয়েই আড়ানী পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। অবিলম্বে এ শহিদুজ্জামানের মনোনয়ন বাতিল করে পৌর মেয়র মুক্তারকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানান তিনি।
স্থানীয় পৌরবাসী আফাজ উদ্দিন, শামীম আহমেদ, মাজদার রহমান সহ আরো অনেকে বলেন, পৌর মেয়র মুক্তার আমাদের পৌরসভার যে উন্নয়ন করেছেন তা এর আগে কেউ করেনি। আমরা পৌরবাসী মুক্তারকে আবার মেয়র হিসেবে চাই।
আড়ানী বাজার কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আজিজ আলী বলেন, মেয়র মুক্তার আড়ানী বাজারের যে উন্নয়ন করেছেন তা এর আগে কেউ করেনি। এছাড়া পৌর বাজারে চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অনিয়ম তিনি শক্তহাতে দমন করেছেন। এসব কারণে আমরা তাকে পুনরায় মেয়র হিসেবে চাই।
এ বিষয়ে মেয়র মুক্তার জানান, আড়ানী পৌরবাসী আমাকে পুনরায় মেয়র হিসেবে চাই সে জন্যই তারা মানববন্ধন করছেন। আমার বিগত পাঁচ বছরের উন্নয়নের ফলস্বরুপ সাধারণ জনগণের ভালোবাসা ও বিশ্বাস অর্জন করতে সমর্থ হয়েছি। তাই আমি আড়ানী পৌরসভার সাধারন জনগনের জন্য কাজ করে যেতে চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার উদাত্ত আহ্বান আমাকে পুনরায় আড়ানী পৌরবাসীর সেবা করার সুযোগ করে দিন।

আড়ানী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে শহিদুজ্জামান শাহিদকে প্রার্থী করায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে পৌরবাসী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অনলাইন ডেস্ক: মাদারীপুরের শিবচরে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটনের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ১৯টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২২ শত পরিবারের মাঝে খাবার সহায়তা বিতরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে চৌধুরী ফাতেমা বেগম পৌর অডিটোরিয়াম থেকে দলীয় নেতাকর্মী দিয়ে ইউনিয়নে ইউনিয়নে পৌঁছে দেওয়া হয় চাল, ডাল, তেলসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য।

এ সময় পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. লতিফ মোল্লাসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শিবচর পৌরসভার মেয়র মো. আওলাদ হোসেন খান বলেন, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন এমপির পক্ষ চাল, ডাল, তেলসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য ইউনিয়নে ইউনিয়নে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, ‘করোনা সংক্রমন রোধে শিবচর বাংলাদেশে দৃষ্টান্ত। বিশেষ করে চিফ হুইপ স্যারের পক্ষ থেকে ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়ার কারণে তা সম্ভব হয়েছে।’

চিফ হুইপের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খাবার বিতরণ


ঢাকা, ১৪ জুলাই, ২০১৯ (চ্যানেল ২৬) : ঝুঁকি কমাতে সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর ‘ইন অরবিট’ (কক্ষ পথ) বীমা করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এ বীমা অংক বাংলাদেশি টাকায় ১৩৪ কোটি ২৮৮ লাখ টাকা। বীমার প্রিমিয়াম ধরা হয়েছে বাংলাদেশি টাকায় ৫ কোটি ৬৮ লাখ ২৭ হাজার টাকা। ভ্যাট হিসেবে সরকারি কোষাগারে জমা হচ্ছে বাংলাদেশি টাকায় ৮৫ লক্ষ ২৪ হাজার টাকা।

ইতিমধ্যে সাধারণ বীমা সরকারের গৃহীত মেগা প্রকল্প সমূহ যেমন- মাতারবাড়ী কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, সিঙ্গেল লাইন ডুয়েল গেজ রেলপথ দোহাজারী থেকে কক্সবাজার, পদ্মা ব্রিজ রেল লিংক, রূপপুর নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট, বঙ্গবন্ধু টানেল ও মেট্টো রেল প্রকল্পগুলোর বীমা ঝুঁকি গ্রহণ করে অর্থনৈতিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে।

এ বছরের ১১ জুলাই থেকে ২০২০ সালের ১০ জুলাই পর্যন্ত এক বছরের জন্য ফ্রান্সের কোম্পানি থ্যালাস অ্যালেনিয়াকে বাদ দিয়ে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সঙ্গে করা হচ্ছে এ বীমা পলিসিটি। এর ফলে দেশের সম্পদ দেশেই থাকছে বলে মনে করেন বীমা সংশ্লিষ্টরা।

সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের জনসংযোগ বিভাগ জানায়, অনেক চেষ্টার পর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বীমা ঝুঁকি গ্রহণ করেছে সাধারণ বীমা কর্পোরেশন। দেশের সম্পদ দেশে রাখতেই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এতে দেশের বীমার প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা বাড়বে এবং সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সঙ্গে দেশি বীমা কোম্পানির পাশাপাশি বিদেশি বীমা কোম্পানি গুলো বীমা করতে উৎসাহিত হবে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বীমা ঝুঁকি গ্রহণ করল সাধারণ বীমা কর্পোরেশন

নিউজ ডেক্স: আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নর্বাচনে ৩২নং ওয়ার্ডে সবচেয়ে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছেন ত্যাগী-নিবেদিতপ্রাণ ও গণমানুষের নেতা জাতীয় পাটির ঢাকা মহানগর-উত্তরের প্রচার সম্পাদক ও মোহাম্মদপুর থানা জাতীয় পাটির সাধারণ সম্পাদক এস.এম হাসেম।

সরোজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বললে, তারা জানান এস.এম হাসেমকে ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই। জনশ্রুতি রয়েছে, তরুন এ জননেতার কাছে যেকোন পেশা শেণীর মানুষই তাদের সমস্যা নিয়ে তার খুব কাছাকাছ যেতে পারেন এবং তিনি ভূক্তভোগীদের কথা মন দিয়ে শুনে তাতক্ষনিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন। এ কারণে এলাকার জনগণ তাকে মানবতার মুকুল নামে উপাধি দিয়েছে।

এলাকাবাসীর আরো জানান, এলাকা আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখা, চাঁদাবাজী সন্ত্রাস-মাস্তানি বন্ধ এবং দূর্নীতির জঙ্গীবাদ-এর বিরুদ্ধে তাঁর শক্ত অবস্থান, তাই এই ৩২নং ওয়ার্ডে এস.এম হাসেম জনপ্রিয়তার শীর্ষে বা বিকল্প কোন নেতা এখনও এই ৩২নং ওয়ার্ডে সৃষ্টি হয়নি।

তরঙ্গ নিউজের সাথে এক সাক্ষাত্কারে কাউন্সিলর প্রার্থী এস.এম হাসেম বলেন, আমি এলাকাবাসীর সেবা করার জন্য নির্বাচন করবো্ জনগন আমাকে নির্বাচিত করলে এলাকার সকলের সহযোগীতা নিয়ে জনগনের জন্য কাজ করে যাবো।আমার বিশ্বাস জনগণ আমাকে যোগ্য মনে করে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন।

এস.এম হাসেম ৩২নং ওয়ার্ডবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের একান্ত আপনজন হয়ে প্রতিদিন পাশে থাকতে চাই আপনাদের হাসি-আনন্দ ও সুখ-দুঃখে। এলাকার উন্নয়ন, নাগরিক দাবী আদায়ের সহযাত্রী ও সব ধরনের সামাজিক কর্মকান্ডে সব সময় আপনাদের পাশে থাকবো। যদি মনে করেন আপনাদের চাওয়া পাওয়ার কথা উচ্চারিত হোক কোন বলিষ্ঠ কন্ঠে তবে আমার বলতে দিন।আপনাদের জন্য আমাকে কিছু করার সুযোগ দিন।আমি আপনাদের ভিড় থেকেই উঠে আসা আপনাদেরই একজন। আপনারা ভালো থাকলে ৩২নং ওয়ার্ডবাসী ভালো থাকবে,আমাদের রাজধানী ঢাকা ভালো থাকবে এবং ভালো থাকবে আমাদের সোনার বাংলাদেশ। তাই সকল দিক বিবেচনা করে আমাকে আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন উত্তর এর ৩২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে আমাকে একটি ভোট দিন।

ডিএনসিসিনির্বাচনে ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে জনপ্রিয়তার শীর্ষে এস.এম হাসেম

নিরেন দাস(জয়পুরহাট)প্রতিনিধিঃ- জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার বুড়াইল সরদার পাড়া গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জেড়ধরে পরিকল্পিত যোগসাজশে হত্যার উদ্দেশ্যে দলবদ্ধভাবে হামলা চালিয়ে (এসএসসি পরীক্ষার্থী) জাফিকুর রহমান অমি (১৫) ও তার মা মোছাঃ আছমা খাতুন (৪০) কে পিটিয়ে গুরুতর জখম ও শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার পর থেকে হামলাকারীরা অর্থবান ও ক্ষমতাধর হওয়াই আহতরা যেন থানায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করতে যায় এ জন্য প্রাণনাশের হুমকি ও বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখালে বিষয়টি আহত পরীক্ষার্থী অমি”র চাচা মোঃ আব্দুল হাই মিলন জানতে পেরে তিনি নিজেই বাদী হয়ে হামলাকারী ৬ জনের বিরুদ্ধে (৫-ফেব্রুয়ারি) ক্ষেতলাল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। হামলাকারী আসামীরা হলেন,উপজেলার বুড়াইল সরদার পাড়া গ্রামের মৃতঃ- মোত্তালেব সরদারের ছেলে (১) মেহেদি হাসান,(২) মোস্তাক হোসেন নাহাজ,(৩) মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন জগলুল,(৪) আসামী মেহেদির স্ত্রী মোছাঃ আনোয়ারা আক্তার নূপুর,(৫) আসামী মোস্তাকের স্ত্রী মোছাঃ নাজমুন নাহার ও একই গ্রামের মোঃ মাফতুম হোসেনের স্ত্রী (৬) পাখি বেগম। উক্ত মামলার বিবরণ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, (গত ৩ এ-ফেব্রুয়ারি) সোমবার শুরু হয় এসএসসি-সমমান-২০ পরীক্ষা প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষে ওই দিন সন্ধায় অমি তার নিজ ঘরে পড়ছিল হঠাৎই সে শুনতে পারে বাহিরে বেজোড়ে চিৎকার চেঁচামেচি হচ্ছে যা পূর্ব শত্রুতার জেড়ে পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাদের বাড়ির সামনের একটি মুরগির ঘর উল্লেখিত আসামীরা ভাঙচুর করছে এমনি অবস্থায় অমি”র মা তাদের বাঁধা দিতে গেলে আসামীদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র ও ইটপাটকেল দ্বারা মাথায় আঘাত করছে পাশাপাশি পড়নের কাপড়চোপড় ছিঁড়ে শ্লীলতাহানি করার দৃশ্য দেখে অমি ঘর থেকে দৌড়ে গিয়ে তার মা কে রক্ষা করার চেষ্টা করলে তাকে লক্ষ করে হত্যার উদ্দেশ্যে সজোরে মাথায় লোহার রড দ্বারা আঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তার মা ছেলেকে বাঁচাতে চিৎকার দিলে স্থানীয় পার্শ্ববর্তী মোঃ মনতাছির মামুন সনি,মোছাঃ শাহানা আক্তার ও লাইজু বেগম সহ আরও অন্যান্যরা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়,ততক্ষণিক ওই স্থানীয়রা অমি ও তার মা কে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ভ্যানযোগে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। বর্তমানে তারা এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ বিষয়ে ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএসএম সিদ্দিকুর রহমান জানান,হামলাকারীদের বিরুদ্ধে পরীক্ষার্থী”র চাচা আব্দুল হাই মিলন বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দিলে মামলাটি আমলে নিয়ে,আমার থানা পুলিশ এ ঘটনা তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছে। এতে আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে। এমনকি তাদেরকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলেও তিনি জানান

ক্ষেতলালে এসএসসি পরীক্ষার্থী ও তার মাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পিটিয়ে জখম”৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা।

লোহাগাড়া প্রতিনিধি মোঃ কাউছার আলম:০৪/১০/২০১৯ চট্টগ্রামের লোহাগাড়া আমিরাবাদ হোটেল ও আই সি হলরুমে জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এক জরুরী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সম্মানিত সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক এমএ তাহের (তারেক) জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক লোহাগাড়া শাখা সাংবাদিক মুহাম্মদ ঈসা পবিত্র কোরআন তেলােওয়াতের মাধ্যমে সভা অনুষ্ঠান শুরু করে। সঞ্চালনা ছিলেন জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা, এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক , লোহাগাড়া প্রেস ক্লাবের সম্মানিত সভাপতি, বাংলাদেশ ভূমি হীন আন্দোলন লোহাগাড়া উপজেলা শাখার সম্মানিত সভাপতি , জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় আইন বিষয়ক সম্পাদক , দৈনিক ওলামা কন্ঠ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা প্রতিনিধি এডভোকেট মুহাম্মদ মিয়া ফারুক, সহ-সভাপতি হারুনুর রশিদ, আরো উপস্থিত ছিলেন তুষার আহামেদ কাইছার শিহাব উদ্দিন শিহাব চ্যানেল কর্ণফুলি, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন বান্দরবান পার্বত্য জেলার কার্যনির্বাহী সদস্য আবুল কাশেম, জেলা কৃষক লীগ নেতা নূরুল ইসলাম ভান্ডারী, ইসমাইল হোসেন সোহাগ সাধারণ সম্পাদক জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লামা উপজেলা শাখা,জিয়া হোসেন, বাবুল চৌধুরী, মোঃ কাউছার আলম, মুহাম্মদ ঈসা দপ্তর সম্পাদক জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা , আব্বাছ উদ্দিন দৈনিক মানবাধিকার ক্রাইম বার্তার সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া প্রতিনিধি ও জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখার কার্যনির্বাহী সদস্য , রফিকুর রহমান দৈনিক মানবাধিকার ক্রাইম বার্তা লোহাগাড়া প্রতিনিধি ও জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা কার্যনির্বাহী সদস্য, মুহাম্মদ ফাহিম রিপোর্টার, জাতীয় দৈনিক মুক্তালোক, জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন লোহাগাড়া উপজেলা শাখা কার্যনির্বাহী সদস্য, আরো উপস্থিত ছিলেন সাইফুল ইসলাম, রমজান আলী, মুহাম্মদ এমরান সহ প্রমুখ। উল্লেখ্য যে, উক্ত এ বৈঠকে সংগঠনের লোহাগাড়া উপজেলা শাখার জন্যে স্থায়ী অফিসের ব্যবস্থা, শিক্ষা সফর ও সাংবাদিকদের কল্যাণে বিষয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের এর উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

themesbazartvsite-01713478536